আইলিগ অকার্যকর ঘোষিত হোক, মোহনবাগান-কে চ্যাম্পিয়ন মানতে নারাজ ইস্টবেঙ্গল

বিশ্বজুড়ে ‘করোনা’ থাবায় মার্চের মাঝেই আইলিগ বন্ধ হয়েছে। যদিও দ্বিতীয়বারের জন্য মোহনবাগান-কে আইলিগ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করে অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছে এএফসি। তবে এখুনি সবুজ মেরুন শিবিরকে চ্যাম্পিয়ন মানতে নারাজ ইস্টবেঙ্গল। উল্টে চলতি আইলিগ যেন অকার্যকর করে দেওয়া হয় এমনই দাবী জানিয়েছেন ইস্টবেঙ্গল সিও সঞ্জিত সেন। এআইএফএফ এর লিগ কমিটি শনিবার বিকালে বৈঠকে বসবে। তার আগে সব ক্লাবের কাছে পরামর্শ চাওয়া হয়েছে। তার উত্তরে চলতি আইলিগ কে অকার্যকর ঘোষনা করার দাবী জানিয়ে ইস্টবেঙ্গল সিও লিখেছেন, “লিগের মোট পুরস্কার মূল্য দুই কোটি পঁচিশ লক্ষ্য টাকা খেলায় অংশ নেওয়া বারোটি ক্লাবের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হোক”। তবে শনিবারের বৈঠকে লাল হলুদ শিবিরের এই দাবী কি আদৌ কার্যকর হবে? উত্তর খুঁজছে ক্রীড়া মহল।

খবরের সাথে থাকতে এখনই আমাদের ফেসবুক পেজ nabadin.com  লাইক করে সাথে থাকুন। সাথে ট্যুইটারে Nabadin24News  আমরা পৌঁছে যাব আপনার কাছে। আর এখন থেকে সব খবরের বিস্তারিত তথ্য থাকবে ইউটিউব ভিডিওতে। তাই আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News  সাবস্ক্রাইব করে সবসময় থাকুন খবরের সঙ্গে৷ আর আমরা আছি আপনার জন্য।

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত

সোদপুর ইস্টবেঙ্গলিয়ান্স ফেসবুক পেজের থেকে এলাকায় চলছে ত্রাণ বন্টনের কাজ

‘করোনা’ মোকাবিলায় লকডাউন চলছে দেশজুড়ে। যাতে একাধিক সমস্যার সম্মুখীন সাধারণ মানুষ। এই পরিস্থিতিতে সরকার একাধিক পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। মানুষের জন্য কাজ করছেন বহু স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। যার আরেকটি চিত্রের সাক্ষী উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার সোদপুর।
সোদপুর ইস্টবেঙ্গলিয়ান্স পেজের থেকে এলাকার ত্রাণ বন্টনের কাজ শুরু হয়েছে। মূলত পেজের সদস্যরাই এই কর্মকাণ্ডের সাথে যুক্ত হয়ে পৌঁছে যাচ্ছেন মানুষের বাড়ি বাড়ি। এই কাজে যুক্ত ও পেজের অন্যতম একজন কর্মকর্তা আমাদের জানান, “সোদপুরের কয়েকটি অঞ্চলকে ভাগ করে নিয়ে আমাদের কাজ শুরু হয়েছে। পুরো এলাকা একদিনে কভার করা সম্ভব নয়, তাই ধাপে ধাপে চলবে ত্রাণ বিতরণের কাজ। লক্ষ্য ছিল পাঁচশ পরিবারের কাছে আমরা পৌঁছাব। দুই দিনে প্রায় ৬৫০টি পরিবারকে আমরা প্রয়োজনীয় সামগ্রী দিয়ে সাহায্যে করতে পেরেছি।
পাশাপাশি বলতে চাই এই মুহুর্তে ইস্টবেঙ্গল মোহনবাগান ফ্যান ক্লাব অনেক রয়েছে। সব জায়গা থেকে যদি এভাবে এগিয়ে আসেন সদস্যরা, তবে বর্তমানে খারাপ পরিস্থিতি কাটিয়ে মানুষ অনেক তারাতারি স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে আসতে পারবেন”।

খবরের সাথে থাকতে এখনই আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com  লাইক করে সাথে থাকুন। সাথে ট্যুইটারে Nabadin24News আমরা পৌঁছে যাব আপনার কাছে। আর এখন থেকে সব খবরের বিস্তারিত তথ্য থাকবে ইউটিউব ভিডিওতে। তাই আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News  সাবস্ক্রাইব করে সবসময় থাকুন খবরের সঙ্গে৷ আর আমরা আছি আপনার জন্য।

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মুখোমুখি ইস্টবেঙ্গল, জেনে নিন দিনক্ষন ও ম্যান ইউ কর্তাদের মতামত

লাল হলুদের শতবর্ষ উদযাপনে ঐতিহাসিক ম্যাচের সাক্ষী হতে চলেছে যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন। আগামী বছর সল্টলেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মুখোমুখি হতে চলেছে ইস্টবেঙ্গল। সব ঠিক থাকলে ২০২০ সালের ২৬শে জুলাই বা আগস্টের ২তারিখ কলকাতা-য় এই ঐতিহাসিক ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করা হবে। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যে শহরে যুবভারতী ঘুরে দেখেছেন ম্যান ইউ কর্তারা। উপস্থিত ছিলেন এই বিদেশী ক্লাবের ফুটবল ডিরেক্টর অ্যালান ডসন। নতুন মরশুম শুরু করার দোরগোড়ায় ম্যান ইউ। আর তার অাগে ম্যান ইউ কর্তাদের এই এশিয়া সফর যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে ক্রীড়া মহল। বুধবার ঢাকা থেকে বিমানে দমদম বিমানবন্দরে পৌঁছান এশিয়া সফরে থাকা ম্যাম ইউ-এর প্রতিনিধি দল।

বৃহস্পতিবার যুবভারতী পরিদর্শনে গেছিলেন তারা। সূত্রের খবর, সল্টলেক স্টেডিয়াম ঘুরে দেখে খুশি ম্যান ইউ কর্তারা। “নতুন মরশুমের প্রস্তুতি সারতে এশিয়া সফরে এসে যুবভারতী-তে একটি প্রদর্শনী ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলের মুখোমুখি হতে তাদের কোন সমস্যা নেই” বলে জানিয়েছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ফুটবল ডিরেক্টর অ্যালন ডসন। যদিও মাঠ নিয়ে কোন সমস্যার না থাকার কথা জানিয়ে দিলেও খেলা ছাড়াও আরও কয়েকটি দিক খতিয়ে দেখতে এখনও শহরে আছেন চার ম্যান ইউ কর্তা। সবকিছু দেখে শুনে একটি রিপোর্ট চূড়ান্ত করা হচ্ছে। দেশে ফিরে ক্লাবের চিফ কোচ সোলসজায়ার-কে সেই রিপোর্ট জমা দেওয়া হবে। হেড কোচ সম্মতি দিলেই আগামীবছর কলকাতায় ইস্টবেঙ্গল বনাম ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#Sports #Football #East Bengal

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত

“বাড়ির একমাত্র ইস্টবেঙ্গল সমর্থক আমি” আজ সম্মানিত মোহনবাগানের আজীবন সদস্যপদে

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের দ্বারা বিষয়টি আগেই সকলের কাছে পরিষ্কার হয়েছিল। নোবেলজয়ী অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় পা রেখেছেন তিলোত্তমায়। একাধিক জায়গা থেকে তাকে সংবর্ধনা জানানোর জন্য চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। এই সংক্ষিপ্ত সফরে বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন তিনি। তার আগেই নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদের বাড়িতে পৌঁছে গেলেন সবুজ মেরুন কর্তারা। আগেই শতাব্দী প্রাচীন ক্লাবের পক্ষ থেকে ইমেইল করে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়-কে সম্মান জানানোর ইচ্ছা প্রকাশ করা হয়েছিল। বিষয়টি নিয়ে কিছুটা চিন্তিত ছিলেন নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ। যে কথা স্বীকার করে পরবর্তীতে তিনি বলেন, “একজন ইস্টবেঙ্গল সমর্থক হিসেবে আমি বিষয়টা নিয়ে ভাবছিলাম, তারপর মনে হলো দুটি ক্লাব তো বাঙালির সম্পদ, কতো ঐতিহ্য, ইতিহাস, সব ভাবনা সরিয়ে ঠিক করলাম এই সম্মান আমি নেব”। আজ বালিগঞ্জে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদের বাড়ি গিয়ে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে মোহনবাগানের আজীবন সদস্যপদের সম্মান তুলে দেন ক্লাব কর্তারা। সাথে ছিল ১৯১১ সালের ঐতিহাসিক শিল্ড জয়ী মোহনবাগান দলের ছবি ও সবুজ মেরুন উত্তরীয়। অভিজিৎ বাবু বলছিলেন,

“আমার ছোটবেলা কাটানো এই মহানির্বান রোডে ইস্টবেঙ্গল সমর্থক হাতে গোনা কয়েকজন, যার মধ্যে একজন আমি, শুধু তাই নয় আমার বাড়ির প্রত্যেক সদস্য মোহনবাগান প্রেমী, তবে ছোট বেলা থেকে দুই ক্লাবের কাহিনী শুনতে শুনতে আমি যে কখন লাল হলুদ প্রেমী হয়েছিলাম এখন আর মনে করা সম্ভব নয়”।

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#Kolkata #East Bengal #Mohun Bagan

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত

নতুন ইতিহাসের দোরগোড়ায় বাংলার ময়দান, অঙ্কের হিসেব মিলিয়ে দেবে আজকের খেলা

Focal Point:

  • Today’s CFL Match Is East Bengal vs Kolkata Customs

একদিকে ইতিহাস গড়ার লক্ষ্যে হার না মানার মানসিকতা নিয়ে সিএফএল-এর শেষ ম্যাচে বলে পা দিতে চাইছে জহর দাশের ছেলেরা। অন্যদিকে শতবর্ষে প্রথম লিগ জয়ের সম্ভাবনা ইস্টবেঙ্গল-এর সামনে। দুই দল এই মুহুর্তে সমান পরিস্থিতিতে। তবে সব কিছুর উর্দ্ধে গিয়ে গোল পার্থক্য বর্তমানে ময়দানে আলোচনার অন্যতম বিষয়। কারন এই পার্থক্যই ময়দানে গড়ে দিতে পারে নতুন ইতিহাস। ছয় দশকের অবসানে তিন প্রধানের বাইরে কোন ছোট দল চ্যাম্পিয়ন হতে পারে। যার জন্য আরও একটি ম্যাচে জয় দরকার তাদের। আবার আজ যদি হাফ ডজন গোলের ব্যবধানে জয় পায় লাল হলুদ শিবির, তবে নিঃসন্দেহে গ্যালারি সেজে উঠবে লাল হলুদ মশালে। কারন পিয়ারলেস আরও একটি ম্যাচে জয়ী হলেও, গোল পার্থক্য শতবর্ষের প্রথম লিগ নিশ্চিত করবে ইস্টবেঙ্গল। আজ এইসব কিছুকে মাথায় রেখেই বারাসতে জর্জ টেলিগ্রাফের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে পিয়ারলেস। জহর বাবু কোচ জানাচ্ছেন,

“সময় খুবই কম পাওয়া গেছে, মাথা ঠান্ডা রেখে ছেলেদের নিজের কাজ করে যেতে বলা হয়েছে”।

যদিও আজ হারলে এমনি ছিটকে যাবে পিয়ারলেস। সেক্ষেত্রে লিগ জয়ের ক্ষেত্রে ছয় গোলের ব্যবধান না থাকলেও, পয়েন্ট শীর্ষে থাকায় ট্রাফির ঠিকানা হবে লাল হলুদ ক্লাব। তবে শেষ ম্যাচে লাল কার্ড দেখায় আজ মাঠে থাকছেন না জর্জের অন্যতম ভরসা ইচে। তাদের কোচ রঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন,

“আমরা সবকিছু ভুলে সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করবো, হারানোর আর কিছু নেই”। তবে শতবর্ষের পুন্যলগ্নে লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ কতটা? স্প্যানিশ কোচ আলেহান্দ্র-র সোজা উত্তর, “আমরা ম্যাচটা জিততে চাই, তারপর ভাগ্যের ব্যাপার”।

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#Sports #Football #East Bengal

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত

বৃষ্টি ভেঁজা যুবভারতীতে লাল হলুদ দাপট, লিগ টেবিলের শীর্ষে ইস্টবেঙ্গল

Focal Point:

  • The Final Score Of East Bengal vs Mohammedan Is 3-2

ভারী বর্ষনের আমেজ গায়ে মেখে বৃহস্পতিবার দুপুরে মিনি ডার্বি উপভোগ করলো আপামর বাঙালি। পাশাপাশি ম্যাচকে কেন্দ্র করে প্রথম থেকেই চড়া ছিল পারদ। মোহনবাগান-কে আটকে দেওয়া দীপেন্দু বিশ্বাসের ছেলেরা আজও কি কোন অঘটন ঘটাতে সক্ষম হবেন?এই প্রশ্নে উত্তাল ছিল ময়দান। অন্যদিকে আজকের ম্যাচ হারলে লিগ জয়ের আশা শেষ করবে লাল হলুদ শিবির। এমনই চাপা উত্তেজনার মধ্যে দিয়ে আজ শুরু হয়েছিল খেলা। শুরুর প্রথম থেকেই আজ আক্রমনাত্বক ফুটবল খেলে মহামেডান-কে যথেষ্ট চাপে রেখেছিল গার্সিয়া-র ছেলেরা। মাত্র ১২ মিনিটের মাথায় প্রথম গোল করে দলকে এগিয়ে দেন পিন্টু মাহাতো। যদিও এগিয়ে থাকার আনন্দ লাল হলুদ শিবিরে বেশিক্ষন স্থায়ী হয়নি।করিমের ফ্রীকিক বিপদ মুক্ত করতে বোরহা গোমেজ বলে মাথা ছোয়ালে বল জালে জড়িয়ে যায়। বোরহা-র আত্মঘাতী গোলে সমতায় ফেরে মহামেডান। তবে প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার মুখেই আবারও ঘটে অঘটন। কর্নার থেকে লালরিন্ডিকা রালতে-র শর্ট কোলার্ড-র মাথায় লেগে মহামেডানের জালে জড়াচ্ছিল, সেই মুহূর্তে হাত লাগিয়ে বল আটকে দেন মহামেডানের ডিফেন্ডার সাইফুল রহমান। যা রেফারীর দৃষ্টি এড়িয়ে যায়নি। লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন সাইফুল। পেনাল্টি থেকে ৪৩ মিনিটে গোল করে ব্যবধান বাড়িয়ে নেন কোলার্ড। দ্বিতীয়ার্ধে দশ জনের মহামেডান স্বাভাবিকভাবেই বড়ো দলের বিরুদ্ধে যথেষ্ট চাপে থাকে।

৫৮ মিনিটের মাথায় গোল পেয়ে যান মার্কোস। দুই গোলে পিছিয়ে থাকা দলকে খেলায় ফিরিয়ে আনতে নিজের শেষ অস্ত্র কোয়েশি-কে ব্যবহার করতে ভোলেননি দীপেন্দু বিশ্বাস। ৮২ মিনিটে তারই গোলে খেলার ফলাফল হয় ৩-২। তবে শেষ মুহূর্তে লাল হলুদ ডিফেন্সের সামনে তেমন সুবিধা করতে পারলো না মহামেডানের আক্রমনাত্বক বিভাগ। এদিন মহামেডান কে পরাজিত করে ১০ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠে গেল ইস্টবেঙ্গল। অন্যদিকে খেতাব দৌড়ের তালিকা থেকে ছিটকে গেল মহামেডান। যদিও শেষ মুহূর্তে এবার আরও জমজমাট সিএফএল। কারন ইস্টবেঙ্গল খেলবে আর একটি ম্যাচ ও পিয়ারলেস দুটি। আর দুই দলই যদি সব খেলায় জয়ী হয় তবে দুই দলের পয়েন্ট হবে ২৩। সেক্ষেত্রে এবছর সিএফএল মুকুট উঠবে কার মাথায়? এই প্রশ্নের উত্তর দেবে গোল পার্থক্য। তাই আপাতত আগামীকাল রেনবো বনাম পিয়ারলেস খেলার ফলাফল কি হয়, সেদিকেই তাকিয়ে আপামর ক্রীড়া প্রেমী জনতা। (East Bengal vs Mohammedan)

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#Sports #Football #East Bengal

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত

“আজকের তিন পয়েন্ট, আর পিছন ঘুরে তাকাতে হবে না”

Focal Point:

  • Today’s Match East Bengal vs Mohammedan In CFL

লিগ জয়ের আশা নিয়ে কিছুদিন আগেও জোর জল্পনা শুরু হলেও এই মূহুর্তে কিন্তু লাল হলুদ শিবিরের কাছে বিষয়টা অতো চিন্তার নয়। বরং বিশেষজ্ঞদের মত, খেতাব জয়ের ভাবনা দূরে রেখে আজ যদি মিনি ডার্বি-তে জয় ছিনিয়ে নেয় ইস্টবেঙ্গল, তবে খেতাব জয়ের থেকে মাত্র কয়েক কদম দূরে থাকবে তারা। কিন্তু প্রতিপক্ষ বেশ শক্তিশালী ক্লাব মহামেডান। চলতি লিগেই যাদের কাছে এক কথায় দিশেহারা হয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে মোহনবাগান-কে। ময়দানে গুঞ্জন, সেদিন যদি মহামেডানের বিরুদ্ধে কিবু ভিকুনা-র ছেলেরা জয়ী হতো, তবে আজ স্বাভাবিকভাবেই আলোচনার বিষয় হতে পারতো অন্যরকম। আর সেই মহামেডান কে পরাজিত করে লক্ষীবারের বিকালে লিগ জয়ের ক্ষেত্রে কিভাবে নিজেদের মেলে ধরতে সক্ষম হবেন গার্সিয়া-র ছেলেরা, নাকি সেদিন মহামেডানের কাছে দল পরাজিত হলে, লিগ জয়ের স্বপ্ন ছেড়ে যেভাবে মুখ কালো করে ঘরে ফিরেছিলেন সবুজ মেরুন সমর্থকেরা, আজও তেমন কিছু অপেক্ষা করছে লাল হলুদ গ্যালারির জন্য? ইতিমধ্যে এমন কতগুলো প্রশ্নে যথেষ্ট সরগরম বাংলার ক্রীড়া মহল। অন্যান্য মাঠে খেলা হলে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে কিছুটা চিন্তার ভাঁজ থাকে সব কোচের কপালে। কিন্তু আজ ম্যাচের ঠিকানা যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন। লাল হলুদের স্প্যানিশ কোচ জানাচ্ছেন,

“সল্টলেক স্টেডিয়াম নিয়ে আলাদা করে কিছু বলার নেই, খুব ভালো একটা ম্যাচ আজ উপভোগ করবেন দর্শকরা”। “আমরা জানি এই ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট ঘরে তুলতে পারলে, আর পিছন ফিরে তাকাতে হবে না”। “লাল হলুদের ফুটবলাররা জানে আজ মাঠে নেমে কি করতে হবে, আমার আশা কোন গোল না হজম করেই বৃহস্পতিবার জয় পাবে ইস্টবেঙ্গল”।

(East Bengal vs Mohammedan)

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#Sports #Football #East Bengal

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত

ঘরের মাঠেই জ্বললো লাল হলুদ মশাল, তবুও অপেক্ষা তো করতেই হবে

Focal Point:

  • The Final Score Of East Bengal vs Rainbow Is 1-0

একদিকে আলেহান্দ্র-র মতো একজন অভিজ্ঞ কোচ, অন্যদিকে আজীবন লাল হলুদ জার্সিতে বাংলার মাঠে সুপরিচিত নাম সৌমিক দে। যিনি আজ রেনবো-র কোচ হয়ে ইস্টবেঙ্গলের বিপক্ষে ৯০ মিনিট লড়াই চালিয়ে গেলেন দাগ আউটে দাঁড়িয়ে। লিগ জয়ের জন্য এই ম্যাচ থেকে পয়েন্ট সংগ্রহ করা যে কতটা লাভজনক, সেবিষয়ে আলাদা করে লাল হলুদ শিবির-কে ভাবতে হয়নি, কারন রেনবো-র বিরুদ্ধে পয়েন্ট লাভ করলেই লিগ টেবিলের শীর্ষে থাকা পিয়ারলেস-কে ছুঁয়ে ফেলা সম্ভব। তাই এক কথায় জয়ের খিদে নিয়েই আজ খেলা শুরুর প্রথম থেকে মাঠে দাপিয়ে বেড়ালেন কোলার্ড, মার্কোস, পিন্টুরা। তবে প্রথম থেকেই ইস্টবেঙ্গল ফুটবলারদের ঘনঘন আক্রমনের মুখে রেনবো ডিফেন্স কে কিছুটা দিশেহারা দেখালেও ম্যাচের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে গেল তারা। তাই এক কথায় টানটান উত্তেজনার মধ্যেই শুক্রবার বিকালের ৯০ মিনিট অতিক্রান্ত করলো ইস্টবেঙ্গল ফুটবল গ্রাউন্ড। প্রথমার্ধে ৩৫ মিনিটের মাথায় বক্সের মধ্যে রোনাল্ডো-কে ফাউল করে বসেন রেনবো ডিফেন্সের এক ফুটবলার। পেনাল্টি পেয়ে সহজেই রেনবো-র জালে বল জড়িয়ে দলকে এগিয়ে দেন মার্কোস। তবে রেনবো-র হার না মানা মনোভাব আজ ম্যাচের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লক্ষনীয়। আর তার ফলস্বরূপ হয়তো খেলায় একাধিকবার কোলার্ড, পিন্টুদের সামনে গোলের সুযোগ তৈরি হলেও ইস্টবেঙ্গলের পক্ষে ব্যবধান বাড়ানো সম্ভব হলোনা। তবে ১-০ ব্যবধানে ম্যাচ জিতে এই মুহূর্তে লিগ জয়ের অন্যতম দাবিদার হিসেবে নিজেদেরকে অনেকটাই মেলে ধরতে সক্ষম গার্সিয়া-র ছেলেরা।(East Bengal vs Rainbow)

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#Sports #Football #East Bengal

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত

অভিজ্ঞতার আড়ালে বিপদের আশঙ্কা নেই তো?

Focal Point:

  • Today’s CFL Match East Bengal vs Rainbow In Kolkata

দলের অবস্থান নিয়ে ক্রীড়া মহলে যথেষ্ট আলোচনা চললেও লাল হলুদ শিবির যে এই মুহুর্তে লিগ টেবিলের উপর উঠে আসার জন্য অঙ্গিকারবদ্ধ, তা বলাই বাহুল্য। অভিজ্ঞ স্প্যানিশ কোচ ভালো মতোই জানেন কোন পরিবেশে ছক সাজানোর কি কৌশল। বিশেষ করে আজকের ম্যাচ কে কেন্দ্র করে আলোচনা যখন মোড় নিয়েছে অন্যদিকে। ময়দানে বিশেষজ্ঞ মহলের আলোচনায় যদি কান দেওয়া যায়, তো ইস্টবেঙ্গল-এর থেকে অনেকটাই দুর্বল দল রেনবো, একথা স্বীকার করে নিতে কেউ দ্বিধাবোধ না করলেও, সেই পথে আলোচনার অন্য বিষয় হয়েছে লাল হলুদের ঘরের ছেলে সৌমিক দে। এই মুহূর্তে যার হাতে রেনবো দলের দায়িত্ব। আগেই বলেছিলেন,

“কোচের দায়িত্বে আসার এক দিনের মাথায় মোহনবাগান-এর বিরুদ্ধে মাঠে নামতে হয়েছিল, এবার সামনে ইস্টবেঙ্গল, সময় অনেক কম, কিন্তু আমরা নিজেদের সেরাটা দিয়েই মাঠ ছাড়তে চাই”।

ইস্টবেঙ্গল প্রসঙ্গে হাসি মুখে সোজাসাপটা উত্তর,

“লাল হলুদ জার্সি ছাড়া কোনদিন অন্যকিছু ভাবিনি, কিন্তু এখানে আমি কোচ, বিষয় সম্পুর্ন আলাদা, রেনবো-কে ছন্দে ফিরিয়ে আনার জন্য যা করতে হয় করবো”।

(East Bengal vs Rainbow)

আর গতকালের ম্যাচে মহামেডান-এর বিরুদ্ধে বিপর্যস্ত মোহনবাগান-কে দেখে আলে স্যার ভালো মতোই বুঝেছেন বিপদ ঘটতে পারে যে কোন মুহূর্তে, আর এই মুহূর্তে তা সামলে ওঠা খুব মুশকিল। তাই সবদিক ভাবনা চিন্তা করে শুক্রবার বিকালে কোন ছকে বাজিমাত করবেন কোন কোচ? এটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন।

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#Sports #Football #East Bengal

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত

শেষ মুহূর্তে ফিরে আসা, ৮৪ মিনিটে জগন্নাথের গোলেই যেন সোম সন্ধ্যায় অস্তমিত লাল হলুদের সূর্য

Focal Point:

  • The Score Of East Bengal vs Bhawanipore F C Is 2-2

এক কথায় খেলার শেষ মুহূর্তে জগন্নাথ সাহা-র গোলে একটা নাটকীয় ফুটবল দেখতেই আজ হয়তো মুখিয়ে ছিল কল্যাণী স্টেডিয়াম। সোমবার ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে মাঠে নেমে প্রথম থেকে যথেষ্ট চাপে ছিল ভবানীপুর (East Bengal vs Bhawanipore)। মাত্র ছয় মিনিটে পিন্টু মাহাতো-র গোলে লাল হলুদ গ্যালারীতে শুরু হয় মশাল জ্বালানোর প্রস্তুতি। তবে প্রথমার্ধে আর কোন দলই গোল করতে সক্ষম হয়নি। কিন্তু চাপের মুখে দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমে শঙ্করলালের ভবানীপুর যেন হার না মানায় অঙ্গীকারবদ্ধ।

৫৯ মিনিটে সবুজ মেরুনের প্রাক্তনী কামো-র গোলে খেলায় সমতা ফেরায় ভবানীপুর। পিছিয়ে থাকা ইস্টবেঙ্গলের আক্রমনাত্বক ফুটবলের সামনে তারপর কিছুক্ষনের জন্য যেন পথ হারিয়েছিল শঙ্করলালের ছেলেরা। ৮২ মিনিটে জালে বল জড়িয়ে দুই গোলে ইস্টবেঙ্গল কে এগিয়ে দেন বোরহা গোমেজ। তবে এগিয়ে যাওয়ার আনন্দ আজ যেন সীমাবদ্ধ থাকলো মাত্র দুই মিনিটের মধ্যে। ৮৪ মিনিটে জগন্নাথ সাহা-র গোলেই যেন সোম সন্ধ্যায় অস্তমিত লাল হলুদের সূর্য। উল্লেখ্য আজ দুই দলই সাত ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে মাঠে নেমেছিল। ড্র হওয়ায় দুই দল এক পয়েন্ট করে সংগ্রহ করলেও গোল পার্থক্যে লিগ টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলো ভবানীপুর। স্বাভাবিকভাবেই লিগ জয়ের ক্ষেত্রে আরও চাপে ইস্টবেঙ্গল।

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#Sports #Football #East Bengal

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত