featured post লোকনীতি ও গণতন্ত্র সূচনা

“হিন্দু শরণার্থীদের নিয়ে আপনাদের চিন্তা নেই” তৃনমূল কে প্রশ্ন করলেন অমিত শাহ্

পূর্ব পরিকল্পিত কর্মসূচী অনুযায়ী রাজ্যে পৌঁছলেন অমিত শাহ্শহরে এসে মেয়ো রোডের দলীয় সমাবেশে যোগ দেন তিনি। মঞ্চে প্রথমে শহীদ ‘ক্ষুদিরাম বসু’র চিত্রে মাল্যদান ও সম্মান জ্ঞাপন করে বক্তৃতা শুরু করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। জনগণের উদ্দেশ্যে “ভারত মাতা কি জয়” স্লোগান দিয়ে বক্তৃতা শুরু করেন অমিত শাহ্। এরপরই একের পর এক তীক্ষ্ণ বাণে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস কে বিঁধতে থাকেন তিনি। সভা থেকে তৃণমূল কংগ্রেস কে আক্রমণ করে কি বললেন অমিত শাহ্? ১.”এই জনসমাগম প্রমাণ করে বাংলায় বিজেপি আসছে”।
২.”বাংলার জেলায় জেলায় গণতন্ত্রের আওয়াজ পৌঁছে দেব”।
৩.”আজকে বিজেপির এই সমাবেশ বন্ধ করার জন্য অনেক চক্রান্ত করা হয়েছিল” বলে অভিযোগ করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ্।
৪.”আমরা কেন বাংলা বিরোধী হব? আমরা বাংলা বিরোধী নই, মমতা বিরোধী” বলে স্পস্ট জানান অমিত শাহ্।
৫.”প্রতিজ্ঞা করছি নাগরিকপঞ্জির কাজ সম্পুর্ন করবই”। ৬.”অনুপ্রবেশকারীরা আগে বামেদের ভোট দিতেন, এখন তারাই তৃণমূলের ভোটব্যাঙ্ক”।
৭.”সেইসময় অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে মমতা লোকসভায় সরব হয়েছিলেন”। বলেছিলেন, “অনুপ্রবেশকারীদের বের করে দেওয়া হোক”। “এখন সেই নেত্রী অনুপ্রবেশকারীদের সমর্থনে আন্দোলন করছেন কেন”? সভা থেকে প্রশ্ন তোলেন অমিত শাহ্।
৮.”মমতার আপত্তিতে নাগরিক পঞ্জি থেমে থাকবে না” বলে মত অমিত শাহ্ র।
৯.জাতীয় রাজনীতির প্রসঙ্গ তুলে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি বলেন, “রাজীব গান্ধী অসম চুক্তি সম্পুর্ন করেছিলেন, এখন রাহুল গান্ধী বিরোধিতা করছেন”।
১০.”আমাদের কাছে আগে দেশ, পরে অনুপ্রবেশকারীরা”।
১১.”বিরোধীদের যতই আপত্তি থাকুক নাগরিকপঞ্জির কাজ সম্পূর্ণ হবেই”। ১২.”শরণার্থীদের আশ্রয় দেওয়া ভারত সরকারের দায়িত্ব। বাংলাদেশ, পাকিস্তান আফগানিস্তানের হিন্দু শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিষয়ে তৃণমূল কংগ্রেস কি ভেবেছে, তা জানান হোক”।
১৩.”সভা থেকে তৃণমূল সরকারের উদ্দেশ্যে অমিত শাহ প্রশ্ন, “হিন্দু শরণার্থীদের নিয়ে আপনাদের চিন্তা নেই”?

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com
আরও জানতে চোখ রাখুন আমাদের পোর্টালে Nabadin.com
ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

আপনি কি আবগত আছেন?

অনুসরণঃ

#Politics  #National