Ashokenagar
featured post দক্ষিণবঙ্গ বঙ্গ সূচনা

অশোকনগরে নাবালিকা-র বিয়ের প্রস্তুতি, প্রশাসনকে মেয়ের বাড়ি থেকে মুচলেকা দেওয়ার পরেও চলতে থাকে প্রস্তুতি, তারপর?

Focal Point:

  • Ashokenagar Police Prevent A Marriage Preparation Of A Minor Girl

“মেয়ের বাবা এলাকার প্রভাবশালী ব্যাক্তি”, “তার মুখের উপর কথা বলতে সাহস করছেন না স্থানীয়রা”। “আর এসবের আড়ালে ঘটতে চলেছে একটি ভয়ঙ্কর ঘটনা”। “প্রশাসন যদি এখনও তৎপর না হয় তবে ওই ব্যক্তির নাবালিকা কন্যার বিয়ে অাটকানো হয়তো আর সম্ভব হবে না”।

অশোকনগর-এর (Ashokenagar) একজন শিক্ষিকা স্যোশাল মিডিয়া-য় এমনই পোস্ট করলে তা ভাইরাল হয় মুহূর্তে। যা ঘুরতে ঘুরতে প্রশাসনের নজরে আসতেও সময় লাগেনি। যা দেখেই ব্যবস্থা নিতে তৎপর হয় প্রশাসনিক মহল। চাইল্ড লাইনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে মেয়ের বাড়ি পৌঁছায় প্রশাসনের কর্তা, ব্যক্তিরা। দেখা যায় বাড়ির ছাঁদে ছোট প্যান্ডেল বাঁধা হয়েছে। আত্মীয় স্বজনের উপস্হিতি ও উন্মাদনা বলে দিচ্ছে আনন্দ অনুষ্ঠান শুরুর মুহূর্তে। আর সেই সময় বাড়িতে পুলিশ কেন? মেয়ের বাবা-র প্রথম যুক্তি ছিল,

“আমরা জানি মেয়ের এখনও ১৮ বছর হয়নি”। “তাই আপনারা নিশ্চিন্তে ফিরতে পারেন”। “এখনই আমরা ওর বিয়ে দেব না, শুধু আশির্বাদ-টা সেরে রাখবো”।

মেয়ের বাবা-র কাছ থেকে এমনি আশ্বাস পেলে, মুচলেকা লিখিয়ে নিয়ে ফিরে আসে প্রশাসনের ব্যাক্তিরা। তবে এপর্যন্ত সব ঠিক থাকলেও তো হতো, কি ভাবছেন? তাহলে সমস্যা তো মিটেই গেছে? একদমই না। এরপরের চিত্রটা জানতে পারলে চোখ কপালে উঠবে আপনারও। মেয়ের বাড়ি থেকে প্রশাসনের কর্মী, চাইল্ড লাইনের প্রতিনিধিরা ফিরে এসছেন কিছুক্ষন হয়েছে মাত্র। পুনরায় সেই এলাকা থেকে প্রশাসনের কাছে খবর এলো, ‘পাত্রের বাড়ি দূরের এক জেলায়, আর সেখান থেকে পাত্র সমেত বরযাত্রী এসে পরলো বলে”। ‘বুদ্ধি খাটিয়ে প্রশাসনের কর্তা, ব্যক্তিদের ফিরিয়ে দিয়ে এখন জোর কদমে চলছে বিয়ের কাজ’। ‘ঠিক রয়েছে কোনরকমে বিয়েটা শেষ হলে রাতেই নব বধূ-কে নিয়ে ফিরবে বর ও বরযাত্রী’। ঘটনাস্থলে অশোকনগর থানার ওসি অয়ন চক্রবর্তী-র নেতৃত্বে পৌঁছায় বিশাল পুলিশ বাহিনী। উপস্থিত হন জেলা চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটি-র কর্মীরা। সেখান থেকে নাবালিকা-কে উদ্ধার করে হোমে নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তীতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়া দিয়ে জানানো হয়,

“আমরা প্রথম থেকেই বিষয়টির উপর নজর রেখেছিলাম”। “এখনও ওই পরিবারের উপর নজর রাখা হয়েছে”। “সবকিছু বুঝে নিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার জন্য পুলিশের সাথে আলোচনা করা হচ্ছে”।

এপ্রসঙ্গে অশোকনগর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক ধীমান রায় “নবদিন”-কে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেন,

“যে ঘটনা ঘটেছে প্রশাসন তৎক্ষণাৎ ব্যবস্হা নিয়েছে”। “১৮ বছরের আগে কোন নাবালিকা-র বিয়ে দেওয়া যাবে না, এটি আইন বিরুদ্ধ কাজ, অতএব এমন ঘটনা আমরা কোনভাবেই সমর্থন করবো না”।

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#West Bengal #South Bengal #Ashoknagar

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত