featured post ক্রীড়া ফুটবল সূচনা

খেলা শেষ হতেই প্রতিবাদের ভাষায় উত্তাল হলো লাল হলুদ গ্যালারি, পুলিশের লাঠি চার্জ

কলকাতা লিগের তৃতীয় ম্যচ ড্র। খেলা শেষ হতেই গ্যলারিতে সহ্যের বাঁধ ভাঙল লাল হলুদ সমর্থকদের। “গো ব্যাক সুভাষ ভৌমিক” স্লোগানে উত্তাল হলো গ্যলারি। অবশেষে অবস্থা সামলাতে লাঠি চার্য করতে হয় পুলিশকে। দল গড়া নিয়েও প্রশ্ন তোলেন ক্ষুব্ধ সমর্থকেরা। ঘরের মাঠে কাস্টমসের সাথে এই পয়েন্ট ভাগাভাগি যেন কিছুতেই মেনে নেওয়া সম্ভব হলো না লাল হলুদ সমর্থকদের কাছে।
উল্লেখ্য খেলা শুরু হতেই গোল করার সুযোগ আসে ইস্টবেঙ্গলের সামনে। বক্সের মধ্য সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেননি রালতে। ১৪ মিনিটে পুনরায় গোলের সুযোগ তৈরি হলেও তা মিস করেন দিদিকা। এরপর একাধিক বার লাল হলুদ খেলোয়াররা গোলের চেষ্টা করলেও তা সফল হয়নি। গোল শুন্যই থেকে যায় ম্যচের প্রথমার্ধ।

আপনার জন্যঃ ইস্টবেঙ্গলে সই করছেন আরো এক বিশ্বসেরা তারকা, কে তিনি?

দ্বিতীয়ার্ধে দুটি পরিবর্তন করে মাঠে দল নামায় ইস্টবেঙ্গল। সুযোগ দেওয়া হয় ব্রান্ডনকে। কিন্তু ম্যচে গোল করার সব থেকে সহজ সুযোগটি মিস করেন ব্রান্ডন। নির্ধারিত সময় শেষে অতিরিক্ত ৭ মিনিট পাওয়া গেলেও কোন কাজ হয়নি। শেষ বেলাতেও ইস্টবেঙ্গলের দুটি গোলমুখি শট আটকে দেন কাস্টমসের গোলকিপার শুভম্ সেন। খেলা শেষে ম্যচের সেরা ঘোষনা করা হয় শুভম্ কে।
এককথায় খেলোয়ারদের ছন্নছাড়া মনোভাব হতাশ করে সমর্থকদের। গোল শুন্য থেকেই শেষ হয় ম্যচ। আর খেলোয়ারদের এই ব্যর্থতার পরিচয় পেয়েই গ্যলারিতে ক্ষোভে ফেটে পরেন দলীয় সমর্থকরা। সুভাষ ভৌমিক যদিও এই প্রতিবাদের ভাষাকে অন্যায় মনে করছেন না।

আপনার জন্যঃ খাওয়ারের পাতে কাঁচা নুন মিশানোর অভ্যেস, বরখাস্ত হতে পারেন চাকরি থেকে

সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে সুভাষবাবু বলেন, “সমর্থকদের খারাপ বলছি না। দল ব্যর্থ হলে হতাশ হওয়াটাই স্বাভাবিক”। “কিন্তু ভালো লাগছে আমার উপর কেউ খারাপ ভাবে আক্রমন করেনি। আমাকে প্রশ্ন করেছেন সমর্থকরা”। “আগামী ম্যচে দল ভালো খেলবে এবং সমর্থকদের আশা পূরন হবে” বলে মনে করছেন সুভাষ ভৌমিক।

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com
আরও জানতে চোখ রাখুন আমাদের পোর্টালে Nabadin.com
ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

আপনি কি আবগত আছেন?

অনুসরণঃ

#Sports #Football