featured post রাষ্ট্র সূচনা

এক উজ্জল নক্ষত্রের একটুকরো জীবনকাহিনী

জাতীয় রাজনীতিতে ছন্দপতন। প্রয়াত লোকসভার প্রাক্তন সাংসদ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৮৯ বছর। ১৯২৯ সালে ২৫শে জুলাই অসমের তাজপুরে জন্মগ্রহন করেন সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়। পিতা ছিলেন প্রথিতযশা ব্যরিস্টার ও রাজনীতিবিদ্ নির্মলচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়। বাল্যকালে কলকাতা মিত্র ইনস্টিটিউশন থেকে ছাত্র জীবনের সূত্রপাত। পরবর্তীতে কলকাতা প্রেসিডেন্সি কলেজ (বর্তমান প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়) ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনো। এরপর উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্যে বিদেশ পারি। ক্যমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যরিস্টারি পাশ করে ফের দেশে ফেরা। ১৯৬৮ সালে সিপিআই(এম) এর সদস্যপদ লাভ। ১৯৭‍১ সালে প্রথম বর্ধমান লোকসভা কেন্দ্র থেকে নির্বাচনে জয়লাভ। দেশের সংসদীয় রাজনীতিতে সূচনা হলো এক আলোক উজ্জল অধ্যায়ের। এরপর আসন পরিবর্তন। যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে ১৯৭৭ সালে জয়লাভ। কিন্তু ১৯৮৪ সালে রাজ্যবাসী সাক্ষী হয় এক অবাক করা ঘটনার। দীর্ঘ ৪০ বছরের রাজনৈতিক জীবনে একবারই পরাজয়। সদ্য রাজনীতিতে পা রাখা নবাগতা প্রার্থী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কাছে পরাজিত হন দেশের এই প্রবীন রাজনীতিবিদ্। এরপর ফের আসন পরিবর্তন। পরবর্তীতে ১৯৮৯ থেকে ২০০৯ টানা কুড়ি বছর বীরভূম লোকসভা কেন্দ্রের স্হায়ী সাংসদ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়। ২০০৪ সালে
দেশের নিম্নকক্ষ লোকসভার স্পিকার নির্বাচিত হন। যদিও তাল কাটে তার কিছু বছরের মধ্যই। ইউপিএ সরকারের থেকে পার্টি সমর্থন তুলে নেওয়ার পর সংবিধানকে মর্যাদা দিয়ে অধ্যক্ষ পদ ছাড়তে রাজি হননি তিনি। সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে তার পদ ছিল দলের উর্ধে নিরপেক্ষতার প্রতীক। অবশেষর দল থেকে বহিস্কৃত হতে হয় লোকসভার একমাত্র বাঙালি অধ্যক্ষকে। এরপর আর কোনদিন সক্রিয় রাজনীতিতে প্রবেশ করেননি। কিন্তু একজন প্রকৃত বামপন্থী হিসেবে আজীবন নিজের পরিচয়ে থাকলেন সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়। এমন রাজনীতিক এর প্রয়ানে কার্যত নিস্তব্ধ সংসদীয় রাজনীতির রাজনৈতিক প্রাঙ্গন।

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com
আরও জানতে চোখ রাখুন আমাদের পোর্টালে Nabadin.com
ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

আপনি কি আবগত আছেন?

অনুসরণঃ

#Politics  #National