Rabindranath Tagore on Raksha Bandhan
Featured পাঠকের কলমে সূচনা

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর প্রচলিত রাখি বন্ধন আর উত্তর ভারতীয় ‘রাক্সা বান্ধান’ সম্পূর্ন আলাদা

১৯০৫ সালের ২০ জুলাই। ব্রিটিশ সরকার বঙ্গভঙ্গের কথা ঘোষণা করে। জানানো হয়, এই আইন কার্যকরীর হবে ১৯০৫-এরই ১৬ অক্টোবর, বাংলায় ৩০ আশ্বিন।
সেই সময় বেঙ্গল প্রভিন্স ছিল অখন্ড বাংলা, বিহার ও উড়িষ্যা। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের আঁতুড়ঘর ছিল বাংলা। তাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল বাংলা ভাগ করা হবে। মুখে প্রশাসনিক সমস্যাজনিত কারণে বাংলা ভাগ করার কথা বলা হলেও ব্রিটিশ সরকারের মূল উদ্দেশ্য ছিল ধর্মের ভিত্তিতে বিভাজন যাতে মানুষের মধ্যে সাম্প্রদায়িকতার বীজ বপন করা যায় ও ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন দুর্বল হয়ে পড়ে।
সেই সময়ে ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে বঙ্গভঙ্গের বিরোধিতায় বাংলার মানুষ সামিল হন। ঠিক হয়, ওই দিন বাংলার মানুষ পরস্পরের হাতে বেঁধে দেবেন হলুদ সুতো বাঁধবেন। এই দিনকে মিলন দিবস হিসেবে পালন করা হয়।পালন করা হবে অরন্ধন কর্মসূচিও।


কবিগুরু এই দিনটিকে রাখি বন্ধন উৎসব পালন করার ডাক দেন(Rabindranath Tagore on Raksha Bandhan)।
বাংলায় হিন্দু ও মুসলিমদের মধ্যে সম্প্রীতি ও সৌভ্রাতৃত্বকে ফুটিয়ে তুলতেই এই উদ্যোগ নেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। পরের দিন কলকাতার রাস্তায় মিছিল করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে সাড়া দেয় আপামর বাঙালি সমাজ। দিকে দিকে মুখরিত হতে থাকে ‘বন্দে মাতরম’ ধ্বনি।

ছবি সৌজন্যে:- দোলনচাপা সেনগুপ্ত।

রবীন্দ্রনাথ এই রাখি বন্ধন উৎসব নিয়েই গান লিখেছিলেন, ‘বাংলার মাটি, বাংলার জল, বাংলার বায়ু, বাংলার ফল। পুণ্য হউক, পুণ্য হউক, হে ভগবান’।
বাংলার সকল মানুষকে আহ্বান বঙ্গভঙ্গ রদ করার বিষয়ে আহ্বান জানিয়েছিলেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, শ্রী বিপিন চন্দ্র পাল, শ্রী সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়, শ্রী ভূপেন্দ্রনাথ বসু, শ্রী হীরেন্দ্রনাথ দত্ত, শ্রী রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী।
বাঙালির রাখি বন্ধন আগামী ১৬ই অক্টোবর। আসুন কবিগুরুর আদর্শের স্মৃতিচারণা করে বাংলা আবার ভারতকে সম্প্রীতির পথ দেখাক।

খবরের সাথে থাকতে এখনই আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com লাইক করে সাথে থাকুন। সাথে ট্যুইটারে Nabadin24News আমরা পৌঁছে যাব আপনার কাছে। আর এখন থেকে সব খবরের বিস্তারিত তথ্য থাকবে ইউটিউব ভিডিওতে। তাই আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News  সাবস্ক্রাইব করে সবসময় থাকুন খবরের সঙ্গে৷ আর আমরা আছি আপনার জন্য।

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *