রাজ্য সভাপতি পদে ফিরতে চলেছেন জয়া দত্ত?
লোকনীতি ও গণতন্ত্র

ঝাড়গ্রামে আরো শক্ত শাসকের মাটি

শেষ পর্যন্ত ঝাড়গ্রামে নিজেদের জায়গা আবার কিছুটা গুছিয়ে নিতে সক্ষম হলো শাসক দল।বৃহস্পতিবার লোধাশুলির পথসাথীতে ঝাড়গ্রাম জেলার কোর কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে আসেন তৃণমূল মহাসচিব তথা রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেখানে তাঁর উপস্থিতিতে তৃণমূলে যোগদান করেন কাঁকো গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে আদিবাসী সমন্বয় মঞ্চের হয়ে জেতা মঞ্জুশ্রী মুর্মু, চানমনি মুর্মু ও গোপীনাথ সোরেন। এই অঞ্চলের ১৩ টি আসনের মধ্যে মঞ্চের ৪ টি, তৃণমূলের ৪ টি, বিজেপির ১টি ও বিক্ষুব্ধ তৃণমূলের ৪ টি আসন ছিল।(Prtha Chattterjee in Jhargram)
এইদিন মঞ্চের জেতা প্রার্থীরা ছাড়াও বিজেপির ১ জন ও বিক্ষুব্ধ তৃণমূলের ২ জন শাসক দলে যোগ দেন, ফলে এই পঞ্চায়েত টি তৃণমূলের দখলে চলে এল। এইদিন এরা ছাড়াও অজয় সেন, সুশীল চক্রবর্তীর মতো জেলা নেতা সহ ৫০ জনের বেশি বিজেপি নেতা ও কর্মী সমর্থক তৃণমূলে যোগ দেন। পার্থ চট্টোপাধ্যায় এইদিন দাবি করেন “আমরা দলে যোগ দেওয়ানোর উপর জোর দিচ্ছি না। যাঁদের ভুল বোঝান হয়েছিল তাঁদের কাছে টেনে নেওয়ার উপর জোর দিচ্ছি “। আগামি ৯ই আগস্ট আদিবাসী দিবস উপলক্ষে যে সভায় যোগ দিতে আসছেন মুখ্যমন্ত্রী, সেদিন দলিয় পতাকা ছাড়াই সমর্থকদের সভা ভরানোর নির্দেশ দিয়েছেন পার্থ বাবু।এদিকে ওইদিনই ঝাড়গ্রামে পাল্টা সভার ডাক দিয়েছে আদিবাসী সংগঠন ভারত জাকাত মাঝি পরগণা মাহল।
আরও খবর জানতে চোখ রাখুন আমাদের পোর্টালে 
লাইক করুণ ফেসবুক পেজ Nabadin.com

ফলো করুণ আমাদের টুইটার এ Nabadin24news