Jallianwala Bagh
featured post রাষ্ট্র সূচনা

জালিয়ানওয়ালাবাগ কান্ডে ক্ষমা চাইতে নারাজ ব্রিটেন, কারণ?

Focal Point:

  • Reasons Behind The British Govt Fails apologise for Jallianwala Bagh

১৩ই এপ্রিল ২০১৯ সালটা যাই হোক, তারিখের কথায় মনটা থমকে গেল। হওয়াটা স্বাভাবিক। কারন এমনই একটা দিনে আজ থেকে একশো বছর আগে ব্রিটিশ সরকারের নৃশংস হত্যালীলার সাক্ষী থেকেছিল তৎকালীন পরাধীন ভারতবর্ষ। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে জড়িত থাকার অপরাধে সেদিন ইংরেজ পুলিশের গুলিতে মৃত্যুর কোলে ঢুলে পরেছিল প্রায় এক হাজার ভারত মাতার সন্তান। যেন এক না ভোলার করুন ইতিহাস সেদিন দেশের মাটিতে রচনা করেছিল অত্যাচারী শাসক। আর দু দিনের অবসানে সেই বেদনাদায়ক দিনটির শতবর্ষ পূর্ণ হবে।
সূত্রের খবর, শতবর্ষের আগে বিষয়টি আলোচনা শুরু হয় ব্রিটিশ পার্লামেন্টে। পার্লামেন্ট ওয়েস্টমিন্স্টার হলে এপ্রসঙ্গে চলে হাউস অফ কমন্সের বিতর্ক। যেখানে “জালিয়ানওয়ালাবাগ ইস্যুতে ক্ষমা প্রার্থনা করুক ব্রিটিশ সরকার” এমনই প্রস্তাব আনে কনজারভেটিভ পার্টির এক এমপি। এক কথায় দলমত নির্বিশেষে বিষয়টিকে অনেকেই সমর্থন করেন। তবে শেষ মুহূর্তে ব্রিটিশ বিদেশ মন্ত্রকের এশিয়া-প্যাসিফিক বিষয়ক ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী মার্ক ফিল্ড জানান,

“একটি আর্থিক দায়বদ্ধতা এই ক্ষমা চাওয়ার সঙ্গে জড়িত রয়েছে”। “আগামী ১৩ই এপ্রিল এই লজ্জার অধ্যায় ১০০বছরে পদার্পণ করবে”। “ভারতে ব্রিটিশ হাইকমিশনে নিযুক্ত প্রতিনিধিদের নির্দেশ দেওয়া আছে সেদিন সকলেই জালিয়ানওয়ালাবাগে গিয়ে শহীদ-দের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন”। “এই বেদনার ইতিহাসকে মনে রেখে ব্রিটেনেও সেদিন গভীর শোকের মধ্যে দিয়ে শতবর্ষ পালন করা হবে”।

সরকারী ভাবে ক্ষমা চাওয়া পরবর্তীতে ব্রিটিশ সরকারের এমন বক্তব্যে প্রশ্ন তুলছে বিভিন্ন মহল। ক্ষমা চাওয়ার প্রসঙ্গে কেন নারাজ ব্রিটিশ সরকার? অনেকের মতে, “সেদিন গুলিতে নিহত শহীদদের উত্তরাধিকারীরা যেন ক্ষতিপূরন পায় এদিনের বৈঠকে এবিষয়ে আলোচনা হয়েছে, আর সেখান থেকেই সম্ভবত আর্থিক দায়বদ্ধতার প্রসঙ্গটির উত্থাপন করেছেন মন্ত্রী”। যদিও এমন যুক্তিতে হতাশা প্রকাশ করতেও ভূলছেন না কেউ কেউ।

লাইক করুণ আমাদের ফেসবুক পেজ Nabadin.com 

ফলো করুণ আমাদের টুইটারে Nabadin24News

সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Nabadin News

সাম্প্রতিক শিরোনাম:

অনুসরণঃ

#National

পাঠকের প্রতিক্রিয়া একান্ত কাম্য । নিচে কমেন্ট বক্সে জানান আপনার মতামত